কল্যাণ রাষ্ট্র

যে রাষ্ট্র জনগণের নূন্যতম চাহিদা পূরণের জন্য কল্যাণমূলক কাজ করে, তাকেই বলা হয় কল্যাণ
রাষ্ট্র (The Welfare State)। এই ধরেনের রাষ্ট্র জনগণের মৌলিক চাহিদা পূরনের জন্য কর্মের
সুযোগ সৃষ্টি করে, বেকার ভাতা প্রদান করে, বিনা খরচে শিক্ষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করে।
কানাডা, যুক্তরাজ্য, সুইডেন, নরওয়ে ইত্যাদি কল্যাণ রাষ্ট্রের উদাহরণ। কল্যাণ রাষ্ট্র সর্বদাই
ব্যক্তিস্বাতন্ত্র্য ও অধিকার স্বীকার ও সংরক্ষণ করে। রাষ্ট্র সমাজের কল্যাণের জন্য সামাজিক
নিরাপত্তার ব্যবস্থা জোরদার করে। খাদ্য, বস্ত্র, শিক্ষা, চিকিৎসা ও বাসস্থানের ব্যবস্থা করে।
রাস্তাঘাট, এতিমখানা, সরাইখানা, খাদ্য ভতুর্কি প্রদান ও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করে। বেকার ভাতা,
অবসরকালীন বাতা, প্রতিবন্ধী বাতা ইত্যাদি প্রদান করে।সচ্ছলদের উপর উচ্চহারে কর ধার্য করে ও
কম সচ্ছলদের উপর কম কর ধার্য করে দরিদ্র ও দুস্থদের সাহায্য ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করে।
কৃষক, শ্রমিক ও মজুরদের স্বার্থরক্ষার জন্য ন্যূনতম মজুরির ব্যবস্থা করে তাদের জীবনযাত্রার মান
নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা করে। সমবায় সমিতি গঠন ও শ্রমিক কল্যাণ সমিতি গঠন করে কৃষক, শ্রমিক ও
মজুরদের স্বার্থ সংরক্ষনের ব্যবস্থা করে।